ঢাকামঙ্গলবার , ২৮ মে ২০২৪
  1. আনন্দধারা
  2. আন্তর্জাতিক
  3. ইসলাম ও জীবন
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. ক্যাম্পাস
  6. খুলনা
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প ও কবিতা
  9. গুরুত্বপূর্ণ ওয়েব লিংক
  10. চট্রগ্রাম
  11. চাকুরী বার্তা
  12. জনমত
  13. জাতীয়
  14. ঢাকা
  15. পরিবেশ ও বিজ্ঞান

বশেমুকৃবির আন্তর্জাতিক বিষয়ক পরিচালক হলেন অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম

তোফাজ্জল ইসলাম

বার্তাবুলেটিন ডেস্ক: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরকৃ্বি) এর পরিচালক (আন্তর্জাতিক বিষয়ক) হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং এর  অধ্যাপক  ড. মোঃ তোফাজ্জল ইসলাম।  

সোমবার (২৭ মে ২০২৪) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. সিরাজুল ইসলাম তালুকদার স্বাক্ষরিত অফিস আদেশে এই তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, ০১/০৬/২০২৪ হতে আগামী দুই বছরের জন্য তাঁকে তাঁর নিজ দায়িত্বের অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে এই পদে নিয়োগ দেয়া হলো। এ অতিরিক্ত দায়িত্ব পালনের জন্য তিনি বিধি মোতাবেক ভাতাদি প্রাপ্য হবেন।

বাংলাদেশ ও বিশ্ব বিজ্ঞান একাডেমির ফেলো অধ্যাপক ড. তোফাজ্জল ইসলাম একজন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কৃষি বিজ্ঞানী। এ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক খ্যাতনামা জার্নালে তার 3৫০ এর অধিক গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে । গুগল স্কলারে তার বর্তমান সাইটেশনের সংখ্যা 9998। জাতীয় দৈনিক ও সাময়িকীতে তাঁর দুই শতাধিক নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া তার সম্পাদনে ২০টি বই ও ৪৫ টি অধ্যায় প্রকাশিত হয়। জিন এডিটিংয়ের ওপর অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম সম্পাদিত এবং স্প্রিন্জার নেচার প্রকাশিত সিরিজ বই ক্রিসপার-কাস মেথডস বিশ্বে একটি বেস্ট সেলার বই। সম্প্রতি মাতৃভাষা বাংলায় জিনোম এডিটিং নামে একটি বই প্রকাশ করেন, যা প্রথম। বইটি বাংলা ভাষাভাষী বিজ্ঞান প্রিয় মানুষের কাছে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

অধ্যাপক ইসলামের মৌলিক গবেষণার বেশিরভাগ শীর্ষস্থানীয় আন্তর্জাতিক জার্নাল এবং পর্যালোচনাগুলিতে প্রকাশিত হয়েছে যেমন -মলিকুলার প্ল্যান্ট-মাইক্রোব্যাক ইন্টারেক্টেশন, ফলিত এবং পরিবেশগত মাইক্রোবায়োলজি, সেল গতিশীলতা এবং সাইটোস্কেলটন, কৃষি ও খাদ্য রসায়ন জার্নাল, ফাইটোকেমিস্ট্রি, ফাইটোপ্যাথোলজি, উদ্ভিদ এবং মাটি, জৈবিক নিয়ন্ত্রণ, উদ্ভিদ প্যাথলজি জৈব বিজ্ঞান, জৈব প্রযুক্তি, এবং জৈব রসায়ন, জার্নাল কীটনাশক বিজ্ঞান, বেসিক মাইক্রোবায়োলজির জার্নাল, ওয়ার্ল্ড জার্নাল অফ মাইক্রোবায়োলজি অ্যান্ড বায়োটেকনোলজিস, জার্নাল অফ অ্যান্টিবায়োটিকস, জার্নাল অব জেনারেল প্ল্যান্ট প্যাথলজি ইত্যাদি।

সম্প্রতি, তিনি এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে জিম পিটারসন, ওখোয়া লি, এবং ম্যাথিউ পিসিনেরির সমন্বয়ে উচ্চশিক্ষায় কার্যকরভাবে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি কার্যকরভাবে একটি বইয়ের সহ-সম্পাদনা করেন।

আরও পড়ুনঃ  নানা কর্মসূচিতে হাবিপ্রবিতে শেখ রাসেল দিবস পালিত

২০১৬ সালে বাংলাদেশে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া গমের ব্লাস্ট রোগের সমস্যা মোকাবেলায় অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলামের নেতৃত্বে একটি আন্তর্জাতিক সহযোগী দল ব্লাস্ট রোগটির ছত্রাকের জিনগত পরিচয় এবং উৎস সনাক্ত করেছে যেটি বিএমসি বায়োলজি জার্নালে ২০১৬ সালে প্রকাশিত হয়। গমের ব্লাস্ট ছত্রাক সম্পর্কে আণবিক জৈবিক গবেষণা এবং বিস্ফোরণ প্রতিরোধী গমের জাতের বিকাশের মাধ্যমে ভয়াবহ গম বিস্ফোরণজনিত রোগ নিরাময়ের বিষয়ে তার গবেষণার ফলাফল চলমান। তিনি জিনোমিক্স এবং জিন এডিটিং ব্যবহার করে গমের ব্লাস্ট রোগ দ্রুত, সহজে এবং নিখুঁতভাবে নির্ণয়ে জীবপ্রযুক্তি আবিস্কার করেছেন যা বিশ্বব্যাপী ব্যবহৃত হচ্ছে।

তোফাজ্জল ইসলাম

এছাড়াও অধ্যাপক ইসলাম পাট ফাইবার থেকে উচ্চমূল্যের পণ্য উৎপাদনের জন্য ন্যানো প্রযুক্তি ব্যবহার করতে, ন্যানোপেষ্টাইসাইডের বিকাশ এবং কৃষি ও পরিবেশগতভাবে মূল্যবান ম্যাসোপারস ন্যানোম্যাটরিয়ালস প্রস্তুতের জন্য অস্ট্রেলিয়ায় ওলংগং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ইউসুক ইয়ামুচি এবং ডাঃ শাহরিয়ার হোসেনের সাথে গবেষণা সহযোগিতা করছেন। তাদের ফলস্বরূপ সহযোগিতা ইতিমধ্যে বিখ্যাত নেচার কমিউনিকেশন জার্নাল এ ২০১৭ সালে প্রকাশিত হয়। অধ্যাপক ইসলাম একটি স্প্রিঞ্জার বই সিরিজ ব্যাসিলাস এবং অ্যাগ্রোবায়োটেকনোলজির প্রধান সম্পাদক। তিনি ফুলব্রাইট স্কলার হিসাবে ওয়েস্ট ভার্জিনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড্যানিয়েল পানাক্যাসিওনের সাথে স্ট্রবেরি গাছের অ্যানথ্রাকনোজ রোগ নির্ণয়ের জন্য একটি আণবিক ডায়াগনস্টিক সরঞ্জামের বিকাশে কাজ করেছিলেন।

অধ্যাপক ইসলাম বাংলাদেশে ওপেন অ্যান্ড ডিস্টেন্স লার্নিংয়ের (ওডিএল) অন্যতম পথিকৃৎ গবেষক। তিনি বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন স্কুল প্রতিষ্ঠায় উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছিলেন। এ সময় প্যারাগন এন্টারপ্রাইজ লিমিটেড বাংলা ভাষায় প্রকাশিত “শিক্ষায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি” শীর্ষক তার গবেষণা গ্রন্থটি পাঠক ও উচ্চমহলে প্রশংসা লাভ করে।

অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম এম.সি.সি তে প্রথম স্থান অর্জনের জন্য মাননীয় রাষ্ট্রপতি এবং বিএইউর চ্যান্সেলর অধ্যাপক ইয়াজউদ্দিন আহমেদের কাছ থেকে স্বর্ণপদক এবং বি.এস.সি তে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অর্জনের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে বিএইউ চ্যান্সেলর পুরস্কার, কৃষি ও গবেষণায় উল্লেখ্যযোগ্য অবদানের স্বীকৃতিসরুপ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) অ্যাওয়ার্ড (২০০৪ ও ২০০৮), ফাইটোপ্যাথোজেনিক পেরোনোস্পোরোমাইসেটের মধ্যে ইকোকেমিক্যাল মিথস্ক্রিয়ায় উল্লেখযোগ্য গবেষণা আবিষ্কারের জন্য সেরা ইয়ং সায়েন্টিস্ট অ্যাওয়ার্ড (২০০৩), প্রফেসর করিম স্মৃতি পুরস্কার, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন মেধাবী বৃত্তি, বাংলাদেশ বিজ্ঞান একাডেমি স্বর্ণপদক, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও জার্মানি সরকার কর্তৃক প্রদেয় ফেলোশিপ, সিএসআরএল, অক্সফাম এবং জিআরডাব্লু থেকে খাদ্য ও কৃষি পুরস্কার (২০১১), বশেমুকৃবি গবেষণা সম্মাননা, উন্নয়নে বাংলাদেশ এওয়ার্ড সহ আরও অনেক পুরস্কার ও ফেলোশিপ লাভ করেন। এছাড়া সিন্ডিকেট সদস্য ও এক্সপার্ট মেম্বার হিসেবে তিনি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন।

আরও পড়ুনঃ  প্রাতিষ্ঠানিক জ্ঞানের প্রয়োগ শিখতে রাজমিস্ত্রীর কাজে যোগ দিলেন হাবিপ্রবি শিক্ষার্থী

সর্বশেষ - জাতীয়