ঢাকামঙ্গলবার , ১০ জানুয়ারি ২০২৩
  1. আনন্দধারা
  2. আন্তর্জাতিক
  3. ইসলাম ও জীবন
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. ক্যাম্পাস
  6. খুলনা
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প ও কবিতা
  9. গুরুত্বপূর্ণ ওয়েব লিংক
  10. চট্রগ্রাম
  11. চাকুরী বার্তা
  12. জনমত
  13. জাতীয়
  14. ঢাকা
  15. পরিবেশ ও বিজ্ঞান

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে কুড়িকৃবি উপাচার্যের বানী

প্রতিবেদক
বুলেটিন বার্তা
জানুয়ারি ১০, ২০২৩
কুড়িকৃবি ভিসি

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: আজ ১০ জানুয়ারি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে বাণী দিয়েছেন কুড়িগ্রাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এ. কে. এম. জাকির হোসেন ।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) ভাইস-চ্যান্সেলর তাঁর প্রদত্ত বাণীতে বলেন, ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ বঙ্গবন্ধুকে তার ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর সড়কের বাসভবন থেকে পাকিস্তানি সেনারা আটক করে তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানে নিয়ে যায়। মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের পর বিশ্ব জনমতের চাপে ১৯৭২ সালের ৭ জানুয়ারি ভোর রাতে অর্থাৎ ৮ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুকে মুক্তি দিতে বাধ্য হয় পাকিস্তান সরকার। চব্বিশ দিন পর পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে ১৯৭২ সালের এদিন বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করেন। সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে সেদিন বঙ্গবন্ধুর আগমন ছিল বাঙালি জাতির জন্য শ্রেষ্ঠ উপহার। স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের এই দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি জানাচ্ছি বিনম্র শ্রদ্ধা।

বাণীতে আরও বলা হয়, ১০ জানুয়ারি সকালে বঙ্গবন্ধু দিল্লী বিমানবন্দরে পৌছালে তাঁকে ভারতের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী, মন্ত্রীসভার সদস্যবৃন্দ, তিন বাহিনীর প্রধান এবং সেদেশের জনগণ উষ্ণ সংবর্ধনা জানান। বঙ্গবন্ধু তখন ভারতের নেতৃবৃন্দ এবং জনগণের কাছে তাদের অকৃপণ সাহায্যের জন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান। পরবর্তীতে দুপুর ১টা ৪১ মিনিটে ঢাকার মাটিতে পা রাখেন বঙ্গবন্ধু। এসময় আনন্দে আত্মহারা লাখ লাখ বাঙালি ঢাকা বিমানবন্দর থেকে রেসকোর্স ময়দান (বর্তমানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুকে সংবর্ধনা জানাতে জড়ো হন।

বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে আজ তাঁরই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। যার সুদক্ষ নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্বে স্বীকৃত। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের মাধ্যমে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ হিসেবে বিশ্ব দরবারে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে আরো সাহস ও আত্মবিশ্বাসের সাথে এগিয়ে যেতে হবে- বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে এটাই হোক আমাদের অঙ্গীকার।

আরও পড়ুনঃ  করোনা সচেতনায় হাবিপ্রবি গ্রীন ভয়েস'র মাস্ক ও লিফলেট বিতরণ

সর্বশেষ - জাতীয়

নির্বাচিত সংবাদ

হাবিপ্রবিতে দ্রুততম সময়ে উপাচার্য নিয়োগ চান গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদ

বাস চালকের অবহেলায় হাবিপ্রবিতে ২১ শিক্ষার্থীর ভর্তি স্বপ্ন ভঙ্গ

ইউজিসি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ফেলোশিপ অর্জনে অধ্যাপক আফজাল হোসেনকে  হাবিপ্রবি উপাচার্যের অভিনন্দন

পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের নতুন সভাপতি মনিরুল, সম্পাদক আসাদুজ্জামান

রসায়ন বিভাগ হাবিপ্রবি

রসায়ন বিভাগের আন্ত বিভাগীয় বার্ষিক স্পোর্টস ফেস্টিভালের উদ্বোধন

বাঙালি জাতির বাতিঘর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

ফুলবাড়ীতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ

হাবিপ্রবিতে গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতি ৯৫ শতাংশের বেশি

সুষ্ঠুভাবে হাবিপ্রবি কেন্দ্রে ‘ক’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তিপরীক্ষা সম্পন্ন

এসডিএস’র কার্যক্রম পরিদর্শনে বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট