ঢাকাবৃহস্পতিবার , ৬ জুন ২০২৪
  1. আনন্দধারা
  2. আন্তর্জাতিক
  3. ইসলাম ও জীবন
  4. কৃষি ও অর্থনীতি
  5. ক্যাম্পাস
  6. খুলনা
  7. খেলাধুলা
  8. গল্প ও কবিতা
  9. গুরুত্বপূর্ণ ওয়েব লিংক
  10. চট্রগ্রাম
  11. চাকুরী বার্তা
  12. জনমত
  13. জাতীয়
  14. ঢাকা
  15. পরিবেশ ও বিজ্ঞান

না ফেরার দেশে চলে গেলেন সবুজ হাবিপ্রবির স্বপ্নদ্রষ্টা অধ্যাপক টিএমটি ইকবাল

টিএমটি ইকবাল

হাবিপ্রবি প্রতিনিধি: বাংলাদেশের অন্যতম সবুজ ক্যাম্পাস দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। গাছ গাছালিতে সাজানো এই ৮৫ একরের এই ক্যাম্পাসের নেপথ্য নায়ক বৃক্ষপ্রেমী অধ্যাপক টিএমটি ইকবাল চলে গেলেন না ফেরার দেশে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদের উদ্যানতত্ত্ব বিভাগের একজন অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক। তাঁর পুরো নাম তালুকদার মোহাম্মাদ তৌহিদুল ইকবাল।

বরেণ্য এই অধ্যাপক আজ (৬ জুন) আনুমানিক বিকাল ৩ টায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার মৃত্যুতে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় পরিবার গভীরভাবে শোকাহত।

লাল-সাদা রঙের ইটের ভবনগুলোর মাঝে সবুজ গাছ পালার সমারোহ অনিন্দ্য সুন্দর করেছে এই ক্যাম্পাসকে। এই ক্যাম্পাসে রয়েছে বিভিন্ন প্রকার ফল, ঔষধি, ফুলসহ কয়েকশ জাতের বৃক্ষ। ক্যাম্পাসের গাছের কথা উঠলেই সবার প্রথমেই যেই মানুষটির কথা আসবে তিনি হলেন অধ্যাপক টি এম টি ইকবাল। এসব বৃক্ষের প্রায় ৯০ ভাগই রোপণ করেছিলেন তিনি। অসাধারণ এই বৃক্ষপ্রেমী মানুষটি ১৯৯৫ সালে পটুয়াখালী কৃষি কলেজ থেকে বদলি হয়ে শিক্ষক হিসেবে যুক্ত হয়েছিলেন তৎকালীন হাজী মোহাম্মদ দানেশ কৃষি কলেজে। হাজী মোহাম্মদ দানেশ কৃষি কলেজ থেকে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সবুজায়ন করতে তিনি পরিকল্পিতভাবে গাছ লাগিয়ে গেছেন। তিনিই প্রথম এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আয়োজন করেছিলেন। তিনি শুধু নিজে বৃক্ষরোপণ করেননি শিক্ষার্থীদেরও প্রতিনিয়ত বৃক্ষরোপণে উদ্বুদ্ধ করতেন। শুধু বৃক্ষরোপণ নয় পরিচর্যাও করেছেন তিনি।

অধ্যাপক টিএমটি ইকবাল ২০২১ সালে অবসররোত্তরকালীন (পিআরএল) ছুটিতে এবং ২০২২ সালের জুলাইয়ে অবসরে যান। অবসর পরবর্তী রংপুরের তিস্তা ইউনিভার্সিটিতে অধ্যাপনা শুরু করেন। এরই মাঝে গত পরশুদিন ক্লাস চলাকালীন অবস্থায় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে তাৎক্ষণিক রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে কিছুটা সুস্থতা অনুভব করলে তাঁকে দিনাজপুরে নিয়ে আসা হয়। এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য আজ তাকে ঢাকায় নেয়া হলে হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই তিনি জীবনের শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স ছিলো ৬৮ বছর।

আরও পড়ুনঃ  সাম্প্রদায়িক সহিংসতার প্রতিবাদে হাবিপ্রবিতে মানববন্ধন

উল্লেখ্য, মরহুমের ১ম জানাজা আজকে এশার নামাযের পর বাইতুল আমান জামে মসজিদ, ৫ নং রোড, ৯ নং সেক্টর, উত্তরা, ঢাকা অনুষ্ঠিত হবে এবং ২য় জানাজার নামায আগামীকাল জুম’আর নামাযের পর মালশাপাড়া ( বাজার স্টেশন ), সিরাজগঞ্জ শহর অনুষ্ঠিত হবে। জানাযার পর মরহুমকে মালশাপাড়া কবরস্থানে দাফন করা হবে।

সর্বশেষ - জাতীয়

নির্বাচিত সংবাদ

কোভিড প্রটোকল সাধারণ মানুষের জন্য

চুয়েট অফিসার্স এসোসিয়েশনে

চুয়েট অফিসার্স এসোসিয়েশনের নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত

হাবিপ্রবিতে অ্যানুয়াল রিসার্চ রিভিউ  কর্মশালা অনুষ্ঠিত

নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিনাজপুরে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

জিংক ধানের বাজারজাত

জিংক ধানের বীজ বিক্রেতাদের সাথে হারভেস্ট প্লাসের বাজারজাতকরণ শীর্ষক আলোচনা

শেকৃবিতে দেশীয় প্রযুক্তির মাছের ভাসমান খাদ্য তৈরীর মেশিন উদ্বোধন

দীপ্ত এওয়ার্ড

সেরা কৃষি উদ্ভাবক হিসেবে দীপ্ত কৃষি অ্যাওয়ার্ড পেলেন শেকৃবি শিক্ষক মাসুদ রানা

মডেল বাড়ি ‘ভালোবাসা’ হস্তান্তর

ইউজিসির অভিন্ন নীতিমালার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ হাবিপ্রবি শিক্ষকদের

নারী সাংবাদিকতার পথিকৃৎ নূরজাহান বেগম